দাঁতের ব্যথা কমানোর ঘরোয়া উপায়ে | Tooth Pain Remedies in Bengali

by

কথায় আছে, দাঁত থাকতে দাঁতের মর্ম বোঝে না কেউ। এর আক্ষরিক অর্থ আমরা হাড়ে হাড়ে টের পায় যখন এক এক করে দাঁত ভেঙে যায় বা পোকা ধরে। প্রচণ্ড ব্যথা ও যন্ত্রণায় প্রাণ একেবারে ওষ্ঠাগত হয়ে ওঠে। কোনওকিছু খাওয়া তো দূরের কথা, দাঁতের ব্যথা থাকলে পুরো শরীরে যেন যন্ত্রণা বোধ হয়।

অনেকে আছেন যারা দাঁতের যত্ন করেন না, নিয়মিত দাঁত মাজেন না। আবার অনেকে আছেন দাঁত মাজার সঠিক নিয়ম জানেন না। দীর্ঘদিন ধরে সঠিক পরিচর্চার অভাবে দাঁতে ব্যথা, ব্যাকটেরিয়ার সংক্রমণ, মুখে দুর্গন্ধ, অকালে দাঁত ভেঙে যাওয়ার মতো নানা সমস্যা দেখা দেয়। তাই সঠিক সময় দাঁতেরও যত্ন প্রয়োজন। দাঁতকে সুন্দর ও সুস্থ রাখতে পারবেন সহজ কিছু ঘরোয়া উপায়ে। আমাদের আজকের প্রতিবেদনে রইল এমনই কিছু উপায়, যা আপনাকে সহজেই দাঁতের ব্যথা থেকে মুক্তি দেবে এবং আপনার দাঁত হয়ে উঠবে সুন্দর ও ঝলমলে।

দাঁতে ব্যথার কারণ

প্রচন্ড দাঁতের ব্যথায় অনেকেই কষ্ট পান। দাঁতের ব্যথার অনেক কারণ আছে। যেমন, গর্ত হয়ে যাওয়ার কারণে দাঁতে ব্যথা হতে পারে, আঘাত, দাঁতের এনামেল ক্ষয়ে যাওয়া, দাঁতের গ্রাইন্ডিং, ইত্যাদি নানা কারণে দাঁতে ব্যথা হতে পারে। সাধারণত দাঁতের ব্যথা এইসব কারণে হয়ে থাকে –

  • দাঁতের ক্ষয়
  • দাঁতে ফোড়া
  • দাঁতে ফাটল বা ক্ষতি হলে
  • আলগা বা ভাঙা দাঁত
  • সংক্রমণের কারণে – প্রায়শই দাঁতে ব্যকটেরিয়ার সংক্রমণ ঘটে, যার থেকে দাঁতে ব্যথা হয়।
  • মাড়ি ফোলা, রক্ত পড়া। ইত্যাদি নানা কারণে দাঁতে ব্যথা হতে পারে।

দাঁতে ব্যথার লক্ষণ

  • দাঁতে, মাড়িতে, চোয়ালে তীব্র ব্যথা হয়।
  • দাঁত আলগা হয়ে যায়।
  • মাড়ি লাল হয়ে ফুলে ওঠে, মাড়ি থেকে অনেক সময় রক্তপাতও হয়।
  • অনেকের এর থেকে জ্বর আসে।
  • কানে ব্যথা করে।
  • কণ্ঠনালী ফুলে ওঠে।
  • অনেকের দাঁত ও মাড়ি থেকে পুঁজ বের হয়।

ঘরোয়া পদ্ধতিতে দাঁতের ব্যথা কমানোর উপায়

দাঁতে ব্যথা এমনিতেই খুব ভোগায়, শীতকালে তা আরও অসহ্যকর হয়ে ওঠে। সবসময় ডাক্তারি চিকিৎসা করিয়ে এবং অ্যান্টিবায়োটিক না খেয়ে ঘরোয়া পদ্ধতির উপর ভরসা রাখতে পারেন –

১. লবঙ্গ তেল

উপকরণ 

১-২ ফোঁটা লবঙ্গ তেল

কীভাবে ব্যবহার করবেন ?

আঙুলের ডগায় নিয়ে দাঁতের উপর আলতোভাবে লাগিয়ে কিছুক্ষণ রেখে দিন। সারাদিনে ৩-৪বার এই তেল ব্যবহার করতে পারেন।

উপকারিতা 

দাঁতের ব্যথা নিরাময়ে বহুযুগ ধরে এর ব্যবহার চলে আসছে। লবঙ্গে রয়েছে ইউজিনল যা দাঁতের ব্যথা দূর করতে দারুণ কার্যবরী এই তেল লাগানোর কয়েক মিনিটের মধ্যে ব্যথা কমে যাবে (১)

২. আদা

উপকরণ : এক টুকরো আদা

কীভাবে ব্যবহার করবেন : প্রথমে আদা টুকরো করে কেটে নিন। একটি টুকরো দাঁতে যেখানে ব্যথা সেই জায়গায় হালকা করে চিবাতে থাকুন।

উপকারিতা : আদার রস দাঁতের ব্যথা দূর করতে দারুণ উপকারী। মাড়ি ফোলা এবং দাঁতে কোনওরকম সংক্রমণ রোধ করে (২)

৩. হিং

উপকরণ 

এক চুটকি হিং, ১-২ চামচ লেবুর রস এবং কটন বল

কীভাবে ব্যবহার করবেন 

হিং এবং লেবুর রস একসঙ্গে মিশিয়ে নিন। পেস্ট হালকা করে গরম করে নিন, লক্ষ্য রাখবেন যাতে হিং পুড়ে না যায়। মিশ্রণটি তুলোর সাহায্যে দাঁতে লাগিয়ে নিন।

উপকারিতা 

দাঁতের তীব্র যন্ত্রণা থেকে মুক্তি পেতে কয়েক ঘণ্টা অন্তর ব্যবহার করতে পারেন। এটি খুব তাড়াতাড়ি কাজ করে। ব্যথা কমায়, দাঁতে পোকা ধরা রোধ করে। এর মধ্যে অ্যান্টিভাইরাল এবং অ্যান্টিফাঙ্গাল উপাদান রয়েছে (৩)

৪. পিঁয়াজ

উপকরণ 

একটি ছোট্ট পিঁয়াজ টুকরো

কীভাবে ব্যবহার করবেন 

দাঁতে যেখানে ব্যথা, সেখানে পিঁয়াজ টুকরোটি রেখে কয়েক মিনিট অপেক্ষা করুন।

উপকারিতা 

দুদিন অন্তর এটি ব্যবহার করতে পারেন। পিঁয়াজ কেবল ব্যথা কমায় না, ব্যথা সৃষ্টিকারী জীবাণুদের মেরে ফেলে(৪)

৫. রসুন

উপকরণ 

 এক কোয়া রসুন এবং সামান্য লবন

কীভাবে ব্যবহার করবেন 

 রসুন থেতো করে সামান্য নুন মিশিয়ে নিন। দাঁতের যেখানে ব্যথা লাগিয়ে নিন এবং কিছুক্ষণ অপেক্ষা করুন।

উপকারিতা 

 রসুনের এমন অনেক ঔষধিগুণ রয়েছে যা আপনাকে অবাক করবে। এতে অ্যালিসিন রয়েছে যা অন্যতম শক্তিশালী একটি অ্যান্টিমাইক্রোবিয়াল উপাদান। সংক্রমণ রোধ করে, জীবাণুদের ধ্বংস করে এবং দাঁতে ব্যথা কমায় (৫)

৬. গরম নুন জল

একগ্লাস গরম জলে এক চামচ নুন মিশিয়ে কুলকুচি করুন। দিনে ৩-৪ বার এর ব্যবহারে অনেক আরাম পাবেন। গরম নুন জল দাঁতের ফোলা ভাব দূর করে এবং মুখের ব্যাকটেরিয়াকে মেরে ফেলে (৬)

৭. ভ্যানিলা এক্সট্যাক্ট

২-৩ ফোঁটা ভ্যানিলা এক্সট্র্যাক্ট তুলোর মধ্যে নিয়ে দাঁতে লাগিয়ে নিন। খুব তাড়াতাড়ি দাঁতের ব্যথা থেকে মুক্তি পেতে এই ঘরোয়া পদ্ধতি ব্যবহার করতে পারেন। ভ্যানিলা এক্সট্যাক্টের অ্যান্টিসেপটিক উপাদান দাঁত ব্যথা দূর করে (৭)

৮. পেয়ারা পাতা

দাঁতের ব্যথার জন্য খুব বালো পেয়ারা পাতা। কয়েকটা পাতা চিবিয়ে দাঁতে যেখানে ব্যথা সেই জায়গায় রাখুন অথবা কয়েকটা পেয়ারা পাতা ফুটিয়ে, সেই জল দিয়ে মুখ ধুয়ে নিন। এই পাতার মধ্যে রয়েছে অ্যান্টি ইনফ্ল্যামেটরি উপাদান যা ক্ষত সারাতে দারুণ কাজ করে।

৯. বেকিং সোডা

তুলো সামান্য জলে ভিজিয়ে, তাতে বেকিং সোডা লাগিয়ে দাঁতের উপর চেপে ধরে রাখুন। অথবা এক চা চামচ বেকিং সোডা এক গ্লাস গরম জলে মিশিয়ে কুলকুচি করতে পারেন, ভালো ফল পাবেন(৮) । এর অ্যান্টিব্যাকটেরিয়াল উপাদান দাঁত ও মাড়ির সংক্রমণ রোধ করে, ব্যথা দূর করে (৯)

১০. দারুচিনি

দাঁতের ব্যথা দূর করতে দারুচিনি ও মধু একসঙ্গে ব্যবহার করতে পারেন। এটি অ্যান্টি ইনফ্ল্যামেটরি এবং অ্যান্টেমাইক্রোবিয়াল উপাদান সমৃদ্ধ, যা ব্যথা নিমেষে দূর করে(১০)

১১. পুদিনা পাতা

দাঁতের ব্যথা কমাতে পুদিনা পাতার রস দারুণ কাজ করে। এর তেলও ব্যবহার করতে পারেন। দাঁতে ব্যথা কমাতে কয়েকটা পুদিনা পাতা চিবিয়ে মুখে কিছুক্ষণ রেখে দিন। এমনভাবে রাখুন যাতে দাঁতে যে জায়গায় ব্যথা হচ্ছে সেখানে যাতে পুদিনা পাতার রস পৌঁছায় (১১)

১২. অলিভ অয়েল

সামান্য তুলো অলিভ অয়েলের মধ্যে ডুবিয়ে দাঁতে উপর চেপে ধরুন। কিছুক্ষণ রাখার পর মুখ ধুয়ে নিন। দিনে ২-৩ বার এর ব্যবহার করলে দাঁতের যন্ত্রণা থেকে মুক্তি পাবেন। এর অ্যান্টি ইনফ্ল্যামেটরি উপাদান দাঁতের ব্যথা কমায় (১২)

১৩. হাইড্রোজেন পারঅক্সাইড

দাঁতের ব্যথা এবং ইনফেকশন কমাতে এটি দারুণ উপকারী। জলে হাইড্রোজেন পারঅক্সাইড মিশিয়ে সেই জল দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন। এটি কেবল দাঁতের ব্যথা কমায় না, মাড়ি থেকে রক্তপাতের মতো নানা দাঁতের সমস্যা দূর করে (১৩)

দাঁতে ব্যথা থাকলে কী ধরনের খাবার খাবেন ?

দাঁতের ব্যথা হলে ভারী এবং শক্ত খাবার খেতে খুব অসুবিধা হয়। সামান্য জল খেতেও দাঁত কনকন করে ওঠে। তাই নরম এবং সহজপাচ্য খাবার এইসময় ডায়েটে রাখা ভালো। এই সমস্যা দেখা দিলে কী কী খাবেন দেখে নিন –

  • মিল্কসেক
  • কলা, অ্যাপেলসস এবং অন্যান্য নরম ফল
  • তরমুজ
  • দই
  • সেদ্ধ আলু, নুডলস
  • ডিম সেদ্ধ বা ভাজা
  • সবজি সেদ্ধ

এছাড়াও আপনার খাবারের তালিকা সুপ জাতীয় খাবার, নরম ভাত, ডাল রাখতে পারেন।

দাঁতের ব্যথায় কী কী এড়িয়ে চলবেন ?

যে সব খাবার এবং পানীয় ব্যথা বাড়াতে পারে সেগুলি এড়িয়ে চলুন। যেমন –

  • কমলালেবু, আঙুরফল, লেবু এবং অন্যান্য সাইট্রাস জাতীয় ফল এড়িয়ে চলা ভালো।
  • টম্যাটো সস এবং জুস
  • অত্যধিত ঝাল এবং নোনতা খাবার
  • কাঁচা সবজি
  • কোন্ড ড্রিঙ্কস বা ঠান্ডা খাবার

এছাড়াও অ্যালকোহল যুক্ত মাউথওয়াশ এড়িয়ে চলুন।

কখন ডাক্তারের কাছে যাবেন ?

ঘরোয়া উপায়ে যদি অবস্থার উন্নতি না হয় তাহলে অবশ্যই ডাক্তারের পরামর্শ নিন।  দাঁতের ব্যথা যদি একেবারেই না কমে তাহলে দেরি না করে ডাক্তারের কাছে যান। যদি এর থেকে জ্বর আসে এবং কিছুতেই জ্বর না কমে অবশ্যই ওষুধ খান। সবসময় ঘরোয়া উপায়ে যে সমস্যার সমাধান হবে তা নয়, কোনওরকম ইনফেকশন হলে অবশ্যই ডাক্তারের পরামর্শ নেওয়া ভালো।

দাঁতের ব্যথা কীভাবে প্রতিরোধ করবেন ?

নিজের স্বাস্থ্যের প্রতি সচেতনতা এবং কিছু নিময়কানুন মেনে চললেই দাঁতে ব্যথা এড়িয়ে চলতে পারবেন –

  • প্রতিদিনের খাবারে চিনি (সুক্রোজ) এর পরিমাণ সীমাবদ্ধ রাখুন।
  • হাল্কা এবং ভারী খাবার খাওয়ার মধ্যে সময়সীমা কম করুন।
  • দিনে অন্তত দু’বার ব্রাশ করুন।
  • ফ্লোরাইড যুক্ত টুথপেস্ট বেছে নিন।
  • ক্লোরহেক্সিডিন এর মতো ব্যকটেরিয়া নাশক মাউথওয়াশ ব্যবহার করুন।
  • খাবার ভালো করে চিবিয়ে খান।
  • চিনি বিহীন চিউইংগান ব্যবহার করুন।

প্রায়শই জিজ্ঞাস্য প্রশ্নাবলী :

আমার দাঁতে রক্ত পড়তে শুরু করলে আমি কী করব?

আসলে রক্ত দাঁত থেকে নয়, মাড়ি থেকে রক্ত পড়ে। যদি এমনটা ঘটে তাহলে বুঝবেন আপনার দাঁতের যত্ন প্রয়োজন। টুথপেস্ট এবং টুথব্রাশ বদলে দেখুন। খুব রক্ত পড়লে তুলো বা গজ জলে ভিজিয়ে কিছুক্ষণ দাঁতের উপর চেপে ধরুন। কিছুক্ষণের মধ্যে রক্ত পড়া বন্ধ হয়ে যাওয়া উচিত, যদি না হয় সেক্ষেত্রে অবশ্যই ডাক্তারের পরামর্শ নিন।

দাঁতে ব্যথা থাকলে কী কী এড়িয়ে চলতে হবে?

অত্যধিক মিষ্টিযুক্ত খাবার এড়িয়ে চলুন, কারণ এর থেকে বেশিভাগ সময় ব্যাকটেরিয়া সংক্রমণ হয়। ঠান্ডা জাতীয় খাবার, কোন্ড ড্রিঙ্কস, খুব বেশি গরম খাবার না খাওয়াই ভালো। দাঁতের উপর সরাসরি কোনও পেনক্লিয়ার ক্রিম বা জেল লাগাতে যাবেন না, তাতে মাড়িতে ইনফেকশন হতে পারে।

দাঁতের ব্যথা কখন জরুরি অবস্থার সৃষ্টি করতে পারে?

নিম্নলিখিত পরিস্থিতি দেখা দিতে তৎক্ষণাৎ চিকিৎসার প্রয়োজন –

  • চোয়াল ফোলা এবং মুখে ফোলা ভাব
  • বুকে ব্যথা
  • মাথা ঘোরা
  • নিঃশ্বাস নিয়ে কষ্ট
  • কাশি হলে মুখ দিয়ে রক্ত আসলে।

দাঁতের ব্যথা থেকে কী কানের ব্যথা হতে পারে?

হ্যাঁ, দাঁতের ব্যথা থেকে কান ব্যথা হতে পারে। বিশেষ করে চোয়ালের উপরের দিকে প্রচন্ড যন্ত্রণা অনুভব হয়।

দাঁতের ব্যথা থেকে কী জ্বর হতে পারে ?

হ্যাঁ, দাঁত ব্যথা থেকে জ্বর অথবা জ্বর জ্বর ভাব দেখা দেয়। সাধারণত সংক্রমণের কারণে জ্বর আসে।

ক্যাভিটি থেকে কী দাঁতে ব্যথা হতে পারে?

ক্যাভিটি দাঁত ব্যথার অন্যতম সাধারণ কারণ। সংক্রমণের কারণে নার্ভ সংবেদনশীল হয়ে যায়, পরে এর থেকে ব্যথা হয়।

13 sources

Articles on StyleCraze are backed by verified information from peer-reviewed and academic research papers, reputed organizations, research institutions, and medical associations to ensure accuracy and relevance. Check out our editorial policy for further details.
Was this article helpful?
The following two tabs change content below.

StyleCraze

scorecardresearch