হোলি ২০২১ : ত্বক ও চুলের যত্ন নিন আর রঙের উৎসবে মেতে উঠুন | Happy Holi 2021 : Holi Tips for Skin Care and Hair Care

by

কান পাতলেই শোনা যায় কোকিলের কুহুতান। ওরা যেন জানান দিচ্ছে, বসন্ত এসে গেছে। বসন্তে দোল উৎসবে মেতে ওঠে মানুষ। বাঙালিদের কাছে দোল মানে আবির, রং খেলা, পলাশ ফুল আর হইহুল্লোড়। রঙের খেলায় মেতে ওঠার আহ্বানে সেই কবে কবিগুরু রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর  লিখে গেছেন “ওরে গৃহবাসী, খোল, দ্বার খোল, লাগল যে দোল”। বসন্তে প্রকৃতি আপন রং-রূপে সেজে ওঠে। তার সঙ্গে পাল্লা দিয়ে এবার রং আর আবির দিয়ে একে অন্যকে রাঙিয়ে দেওয়ার পালা। সঙ্গে খাওয়াদাওয়া ও আনন্দে মেতে ওঠা । তাইতো বাঙালির অন্যতম প্রাণের উৎসব দোল, যখন ছোটো-বড় সকলেই মেতে ওঠে। অবাঙালিরদের কাছে তা হোলি। রঙ খেলার আনন্দ উৎসব চলে দেশজুড়ে। আর যেহেতু হোলি প্রায় এসেই গেল, সেই নিয়ে চারিদিকে তোড়জোড় শুরু হয়ে গেছে।

রং মাখামাখি আর হইহুল্লোড়ের মাঝে অনেকেরই ত্বক ও চুলের যত্ন নেওয়ার কথা মাথায় থাকে না। কিন্তু বাজারে বেশিরভাগ রঙে নানা ধরণের কেমিক্যাল ব্যবহার করা হয়। যা ত্বক ও চুলের জন্য ক্ষতি করতে পারে। তা বলে কী “খেলবো হোলি রং দেবোনা তাই কখনও হয়”? না উৎসবটা যখন রঙের তখন রং তো খেলতেই। জমিয়ে রং খেলুন তবে সাবধানে। রঙের উৎসবে কীভাবে নিজের ত্বক ও চুলের যত্ন নেবেন, আমাদের এই প্রতিবেদনে তেমনই কিছু টিপস দেওয়া হল।

হোলি টিপস : ত্বক ও চুলের যত্ন

হোলি বা দোল উৎসব মানেই রঙের খেলা। লাল, নীল, হলুদ, সবুজ রঙে রাঙিয়ে দেওয়ার খেলা। কে যত রঙ মাখতে পারে, আর অন্যকে মাখাতে পারে।  নানা রকমের রঙে উপস্থিত কেমিক্যালে ত্বক ও চুল দুটোরই বারোটা বেজে যায়। আমাদের ত্বক অনেক বেশি সংবেদনশীল, রঙে মেশানো কেমিক্যাল ত্বকের জন্য খুব ক্ষতিকারক, ত্বক শুষ্ক হয়ে যেতে পারে। অনেকের র‍্যাশ দেখা দেয় এবং ত্বক জ্বালা করে। চুলেরও জেল্লা হারিয়ে গিয়ে রুক্ষ-শুষ্ক হয়ে যেতে পারে। তাই কীভাবে রঙ খেলেও নিজের ত্বক ও চুল সুরক্ষিত রাখবেন তা জেনে নিন।

  • বাজারে রাসায়নিক যুক্ত সিন্থেটিক রং বেশি পাওয়া যায়। ত্বককে বাঁচাতে যতটা সম্ভব কেমিক্যাল মুক্ত রং এবং আবির বেছে নিন। কেমিক্যালযুক্ত রং সহজে উঠতে চায় না, আবার ত্বক, চুলেরও ক্ষতি করে। তাই বাজার থেকে রং কেনার আগে ভালো করে দেখে কিনুন।
  • বাজারে হার্বাল রং এবং আবির কিনতে পাওয়া যায়। যা অনেক বেশি সুরক্ষিত।
  • হোলি খেলতে যাওয়ার আগে পূর্ণ দৈর্ঘ্যের পোশাক পরুন। যতটা সম্ভব ত্বক ঢেকে রাখুন। তাতে রং খেললেও ত্বকের ক্ষতি কিছুটা এড়াতে পারবেন।
  • হোলির পোশাক হিসেবে বেছে নিন সুতির জামাকাপড়। রোদ-গরম, ধুলো-বালি, রং এইসব এড়াতে সুতির পোশাকই শ্রেয়।
  • চোখ, মুখ এবং মাথা ভালো করে ঢেকে রং খেলুন।
  • চশমা বা সানগ্লাস পরুন। তাতে চোখে সহজে রং ঢুকতে পারবে না।
  • সঙ্গে একটি রুমাল রাখুন, সময়ে সময়ে চোখ মুখ পরিষ্কার করে নিন।

এগুলি ছাড়াও নিজের ত্বক ও চুলের যত্ন নিতে আর কী কী করবেন সে বিষয়ে নিচে বিস্তারিত আলোচনা করা হল।

হোলিতে ত্বকের যত্ন নিতে কিছু টিপস

রং খেলার পর সাবান বা ফেসওয়াশ দিয়ে মুখ ধুয়ে নিলেই যে ছুটি তা কিন্তু নয়। অনেকসময় রং ও তাতে মেশানো কেমিক্যাল রোমকূপের মধ্যে ঢুকে যায়। যার ফলে ত্বক রুক্ষ হয়ে যায়। ফুসকুড়ি ও জ্বালাভাব দেখা দিতে পারে। তাই এই উৎসবের মরশুমে নিজের ত্বকের যত্ন নিন এইভাবে –

হোলির আগে ত্বকের যত্ন

হোলির উৎসবে গা ভাসিয়ে দেওয়ার আগে কয়েকটা টিপস ফলো করুন। তারপর যতই রং খেলুন না কেন ত্বক সুরক্ষিত থাকবে।

  •  হোলি খেলার আগে ৫০ এর বেশি SPF যুক্ত সানস্ক্রিন লাগান। যা আপনার ত্বকের জন্য উপকারী হবে।
  •  কথায় আছে, সাবধানের মার নেই। আর আপনি যদি আপনার রূপ নিয়ে খুব সচেতন হন তাহলে বাড়তি এই উপায় ব্যবহার করতে পারেন। সানস্ক্রিনের উপর পেট্রোলিয়াম জেলি লাগাতে পারেন। ত্বক ছাড়াও বিভিন্ন জায়গায় পেট্রোলিয়াম জেলি লাগাতে পারেন যেমন, কান, ঠোঁট এবং অন্যান্য সংবেদনশীল জায়গার উপর।
  • কখনও হোলি খেলার মাঝে মুখে ক্রিম লাগাবেন না। তাতে রং রোমকূপে আরও বেশি ঢুকে যেতে পারে।
  • দোলের পুরো দিনটাই বাইরে, রোদে গরমে কাটে। তাই ওয়াটার প্রুফ সানস্ক্রিন মাখুন। আপনার ত্বকের ধরনের উপর নির্ভর করে ক্রিম বেসড বা লোশন বেসড সানস্ক্রিন বেছে নিন। ওয়াটার প্রুফ সানস্ক্রিন মাখুন তাতে জলে ধুয়ে যাওয়ার ভয় থাকবে না।
  •  বিশেষজ্ঞদের মতে, ত্বকে ভেজিটেবল অয়েল লাগাবেন না। চেষ্টা করুন নারকেলের তেল ইত্যাদি না লাগাতে। কারণ এর মধ্যে উপস্থিত কেমিক্যাল রঙের কেমিক্যালের সঙ্গে বিক্রিয়া ঘটিয়ে ত্বকের ক্ষতি করতে পারে। যদিও চুলে নারকেল তেল লাগাতে পারেন। চুলের জন্য একটি সুরক্ষিত। এটি চুলে পুষ্টি জোগায় আবার চুল রুক্ষ-শুক্ষ হতে দেয় না।
  • হোলির রং আমাদের ত্বককে রুক্ষ করে দেয়। ত্বকের কোমলতা বজায় রাখতে হোলির আগের দিন দুই চামচ মধু, অর্ধেক কাপ দই একসঙ্গে মিশিয়ে নিন। এরপর তাতে সামান্য হলুদ মেশান। মিশ্রণটি মুখ ও শরীরের অন্যান্য অংশ লাগিয়ে নিন। ২০ মিনিট লাগিয়ে রাখার পর পরিষ্কার জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। তাতে আপনার ত্বক আরও মসৃণ হয়ে উঠবে।

সেইসঙ্গে সানস্ক্রিন আপনার ত্বককে রঙের হাত রক্ষা করতে পারে। পাশাপাশি ফুলহাতা জামাকাপড় পরার চেষ্টা করুন, তাতে ত্বকের উপর রঙের বেশি প্রলেপ না পড়ে। হোলির আগে এবং হোলির দিন মেকআপ যতটা সম্ভব এড়িয়ে চলুন। নিজের ত্বকে প্রাণ ভরে নিঃশ্বাস নিতে দিন। মেকআপ রোমকূপ গুলোকে বন্ধ করে দেয়, তার উপর রং জমলে ব্রণ, ফুসকুড়ি, র‍্যাশ দেখা দিতে পারে। তাই ত্বক যতটা সম্ভব পরিষ্কার রাখুন।

সাবধানতা

হোলির রঙের হাত থেকে ত্বককে রক্ষা করতে অনেকে সরষের তেল লাগানোর পরামর্শ দেন। মুখ, গলা, হাত ও পিঠে ভালো করে তেল লাগানোর পরামর্শ দেন অনেকে। কিন্তু ডাক্তারদের মতে, ত্বকে তেল লাগালে এর উল্টো প্রভাব পড়তে পারে। তেলের সঙ্গে রং ত্বকের গভীরে পৌঁছাতে পারে।

Skin care after Holi

Shutterstock

হোলির পর ত্বকের যত্ন

হোলিতে রং খেলার পর অনেকেই সাবান এবং ফেসওয়াশ ব্যবহার যথেষ্ট মনে করেন। বাইরের রং পরিষ্কার হলেও ত্বক আদ্যৌ ভিতর থেকে পরিষ্কার হয় তাতে? প্রথমত, রঙের মধ্যে মেশানো কেমিক্যাল এবং রঙের দাগ পরিষ্কার করতে সাধারণ সাবান এবং ফেসওয়াশ যথেষ্ট নয়। সবসময় ক্লিনজিং ক্রিম ব্যবহার করুন। রং তুলতে কখনও ত্বক বেশি ঘষাঘষি করবেন না। সাবান বা তেল হালকাভাবে ত্বকের উপর ম্যাসাজ করুন। দ্বিতীয়ত, আপনার ত্বককে ময়েশ্চারাইজিং ক্রিম দিয়ে হাইড্রেট রাখুন।

এর পরেও যদি ত্বকে কোথাও রং লেগে থেকে যায় তাহলে বেসন, দুধ অথবা ল্যাভেন্ডার অয়েল মিশিয়ে ব্যবহার করতে পারেন।  প্যাকটি ২০ মিনিট ত্বকে লাগিয়ে রেখে দিন। তারপর ভালো করে স্নান করে নিন। তাতেও যদি রং না ওঠে তাহলে বিশেষজ্ঞদের দেওয়ার এই উপায়গুলি ব্যবহার করতে পারেন।

  • তৈলাক্ত ত্বকের জন্য – দুধের পাউডার, পেঁপে, লেবুর রস একসঙ্গে মিশিয়ে ঘন মিশ্রণ তৈরি করে নিন। তারপর যেখানে যেখানে রং লেগেছে সেখানে মিশ্রণটি লাগিয়ে নিন। মিশ্রণটি লাগিয়ে ৩০ মিনিট মতো রেখে দিন। তারপর জল দিয়ে ত্বক ভালো করে পরিষ্কার করে নিন।
  • রুক্ষ ত্বকের জন্য – সবার প্রথম একটি কলা চটকে নিন। এরপর তাতে দু’চামচ মধু মেশান। মিশ্রণটি ভালোভাবে মিশিয়ে নিন এবং শেষে তাতে সামান্য নুন মেশান। এর যেখানে রং লেগেছে সেখানে মিশ্রণটি লাগিয়ে নিন। ১০ মিনিট পর্যন্ত রেখে ত্বক জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।
  • রং খেলার পর যদি ত্বক জ্বালা বা চুলকানি হয়, তাহলে এক মগ জলে এক চামচ ভিনিগার মিশিয়ে ত্বকের উপর লাগিয়ে নিন। এতে চুলকানি কমে যাবে। এরপরও যদি চুলকানি, জ্বালা থাকে তাহলে ডাক্তারের পরামর্শ নিন।
  • রং তোলার জন্য বাড়িতে একটি সহজ প্যাক তৈরি করে নিন। ২ চামচ ময়দা, ১ চামচ হলুদ, ১ চামচ মধু, সামান্য দুধ বা দই একসঙ্গে ভালো করে মিশিয়ে নিন। ১৫ থেকে ২০ মিনিট মিশ্রণটি ত্বকের উপর লাগিয়ে রেখে ধুয়ে ফেলুন।
  • যে কোনও ধরণের ত্বকে চন্দন বাটা, হলুদ এবং গোলাপ জল দিয়ে তৈরি ফেসপ্যাক লাগাতে পারেন। মিনিট দশেক রেখে জল দিয়ে ধুয়ে নিন।
  • মুলতানি মাটিও যে কোনও ধরনের ত্বক পরিষ্কার করতে দারুণ উপকারী। মুলতানি মাটির সঙ্গে সামান্য গোলাপ জল মিশিয়ে মুখে লাগান। মিশ্রণটি শুকিয়ে গেলে জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।
  • মুখের রং তুলতে হলুদযুক্ত কোনও ক্লিনজার ব্যবহার করতে পারেন।
  •  রং তোলার পর ত্বক রুক্ষ হয়ে যায়। তাই সারা শরীরে ভালো করে বডি অয়েল বা কোনও ময়েশ্চারাইজার মাখুন।
  •  বেশি ক্ষার যুক্ত সাবান, ফেসওয়াশ দিয়ে মুখ পরিষ্কার করবেন না। তাতে ত্বক আরও ড্রাই হয়ে যাবে।

সাবধানতা

যদি আপনার ত্বকে কোনও সমস্যা থাকে যেমন ধরুন একজিমার মতো সমস্যা থাকে, তাহলে রং খেলবেন না। কারণ রঙে থাকা কেমিক্যাল আপনার ত্বকে সমস্যা সৃষ্টি করতে পারে। ফসকুড়ি, চুলকানির মতো সমস্যা দেখা দিতে পারে। যদি তেমন কোনও সমস্যা হয় তাহলে অবশ্যই ডাক্তারের সঙ্গে পরামর্শ করুন।

হোলিতে চুলের যত্ন

রঙের উৎসবে আনন্দ করবেন ঠিকই কিন্তু চুলের যত্ন নেওয়াও অত্যন্ত জরুরি। রঙে মেশানো কেমিক্যাল চুলের ক্ষতি করতে পারে। চুলের গোড়া দুর্বল করতে দিতে পারে। সেইসঙ্গে আপনার চুল হয়ে উঠতে পারে রুক্ষ ও শুষ্ক। খুসকি, ডগা ফাটার মতো সমস্যাও দেখা দিতে পারে। ফলস্বরূপ দেখা দিতে পারে চুল পড়ার সমস্যা। রং খেলার পর যাতে গোছা গোছা চুল না উঠে যায় তাই সময় থাকতে চুলের যত্ন নিন। এই হোলিতে কীভাবে নিজের চুল রক্ষা করে জমিয়ে রং খেলতে পারবেন, জেনে নিন তার কিছু উপায়।

হোলির আগে চুলের যত্ন

বিশেষজ্ঞদের মতে –

১. স্ক্যাল্পে কখনও তেল লাগাবেন না। তাতে রঙের মধ্যে উপস্থিত কেমিক্যাল স্ক্যাল্পের গভীরে পৌঁছে যেতে পারে। সেইসঙ্গে আপনার চুলের গোড়া আলগা হয়ে যেতে পারে। এছাড়াও বিভিন্ন সমস্যা দেখা দিতে পারে।

২. রং খেলতে যাওয়ার আগে চুলে ভালো করে তেল মালিশ করুন। বিশেষ করে চুলের ডগার দিকে বেশি করে তেল দিন। এমনিতেই চুলের ডগা রুক্ষ হয়ে থাকে, তার উপর রং লাগলে তা আরও রুক্ষ-শুষ্ক হয়ে যেতে পারে। ফলত ডগা ফাটার মতো সমস্যা হাজির হতে পারে।

৩. রং খেলার আগে চুলে হেয়ার সিরাম লাগিয়ে নিন। তাতে রঙের ক্ষতির হাত থেকে আপনার চুল রক্ষা পাবে।

৪. আজকাল বাজারে সানস্ক্রিনের সঙ্গে হেয়ার ক্রিমও খুব সহজে পাওয়া যায়। সামান্য হেয়ার ক্রিম নিয়ে দু’হাতে ঘষে নিন এবং আলতো ভাবে চুলে লাগিয়ে নিন।

৫. ২ চামচ আমন্ড অয়েল, ২ ফোঁটা ল্যাভেন্ডার অয়েল, ১ ফোঁটা রোজ এসেনশিয়াল অয়েল ও ২-৩ ফোঁটা লেবুর রস একসঙ্গে মিশিয়ে নিন। রং খেলার আগে মিশ্রণটি ভালো করে মাথায় মাখুন।

৬. হোলির রং থেকে বাঁচতে স্কার্ফ বা ওড়না দিয়ে চুল ঢেকে রাখুন। তাতে চুলের ক্ষতি থেকে কিছুটা হলেও রেহাই পাবেন।

৭. আপনি যদি চুলে কোনও রকম ট্রিটমেন্ট করে থাকেন, যেমন স্ট্রেটনিং বা চুলে ব্লিচ করিয়ে থাকেন তাহলে অবশ্যই চুল ঢেকে রাখুন।

অনেকের চুলে তেল লাগাতে পছন্দ করেন না। কিন্তু হোলি খেলতে হলে চুলের স্বাস্থ্যের কথাও আপনাকে মাথায় রাখতে হবে। তাই রং খেলার আগে অবশ্যই চুলে তেল দিন। রং খেলার মাঝে কেউ যদি মাথায় আবির বা রং দিয়ে দেয় তাতে কিছু বলার থাকে না। তাই সবচেয়ে ভালো আপনি আগে থেকেই সতর্ক থাকুন। যে কোনও ধরণের তেল চুলে লাগাতে পারেন। নারকেল তেলও বেছে নিতে পারেন যেহেতু এটি চুলের জন্য খুব ভালো কাজ দেয়। আর আপনার চুল যদি খুব লম্বা হয় তাহলে রং খেলার আগে চুল বেঁধে নিন।

Hair care after Holi

iStock

হোলির পরে চুলের যত্ন

সবার আগে স্ক্যাল্প ও চুল ভালো করে জল দিয়ে ধুয়ে ফেলুন। এরপর চুল পরিষ্কার করতে শ্যাম্পু এবং কন্ডিশনার ব্যবহার করুন। সেইসঙ্গে চুল পরিষ্কার করার সময় নারকেলের তেল ব্যবহার করতে পারেন। চুলে তেল লাগিয়ে আধ ঘণ্টা রেখে দিন। তাতে চুলে লেগে থাকা রং সহজে উঠে যাবে। তারপর শ্যাম্পু করে চুল ধুয়ে নিন। তাতেও যদি মনে হয় চুল পরিষ্কার হয়নি তাহলে এই টিপসগুলি অবশ্যই আপনাকে সাহায্য করবে।

  •  চুল পরিষ্কার করতে ভালো ব্র্যান্ডের শ্যাম্পু এবং কন্ডিশনার বেছে নিন।
  • যদি আপনার মনে হয় চুল ভালো করে পরিষ্কার হয়নি তাহলে আরও একবার শ্যাম্পু করে চুল ধুয়ে নিন।
  • চুলে ডিমের হলুদ অংশ অথবা দই লাগান। শ্যাম্পু করার ৪৫ মিনিট আগে লাগিয়ে রাখুন। চুল থেকে তুলতে এবং চুলের ক্ষতি এড়াতে এটি দারুণ কার্যকরী।
  • হোলি খেলার পর শ্যাম্পু করে চুলে সরষের তেল লাগান। ঘণ্টা খানেক তেল লাগিয়ে রাখুন, তাতে রং তাড়াতাড়ি উঠে যাবে আবার চুলের বিশেষ ক্ষতিও হবে না।
  • হোলির রঙে এমনিতেই চুলের রং বির্বণ হয়ে যায়। তাই রং খেলার পর অন্তত কিছুদিন চুলে কোনও কেমিক্যাল ট্রিটমেন্ট বা কালার করাবেন না। চুলকে আগের অবস্থায় ফিরতে কিছুটা সময় দিন।

হোলি খেলার আগে ও হোলির পর চুলের যত্ন নিতে যে টিপস দেওয়া হল, আশা করি সেগুলি কাজে আসবে। এর পাশাপাশি আপনাকে মনে রাখতে হবে যে, দোলে রং খেলার সময়  কেবলমাত্র হার্বাল রঙই ব্যবহার করবেন।

এতো গেল হোলিতে ত্বক এবং চুলের যত্নের কথা। রং খেললেও আপনার সৌন্দর্য যেন অটুট থাকে তার জন্য আরও কিছু বিষয় মাথায় রাখতে হবে। রঙের উৎসবে কীভাবে আপনার সৌন্দর্য ধরে রাখবেন রইল তার কিছু টিপস।

হোলির জন্য আরও কিছু বিউটি টিপস

হাতে যখন রঙের পিচকারি থাকে তখন আর কোনও কিছুই মাথায় থাকে না। একে অন্যকে রং মাখানোর খেলায়, আমরা ভুলেই যাই রূপচর্চার কথা। যদিও হোলির পর ভোগান্তিও হয় প্রচুর। যত্রতত্র রং দেখে তখন আপসোস হয়, আগে যদি একটু সর্তক হওয়া যেত। চুল ও ত্বকের পাশাপাশি হোলির সময় আপনার আর কিছু বিষয়ে নজর দেওয়া উচিত। যেমন আপনার ঠোঁট, নখেরও যত্ন প্রয়োজন। ঠোঁট ও নখের কীভাবে যত্ন নেবেন রইল কিছু টিপস –

হোলি খেলার আগে ঠোঁটের যত্নআত্তি

ঠোঁটের যত্ন নিতে আপনি লিপবাম ব্যবহার করতে পারেন। কিংবা ভালো কোনও ব্র্যান্ডের লিপস্টিকও লাগাতে পারেন। এবিষয়ে বিশেষজ্ঞদের মতে, হোলি খেলার আগে খুব বেশি চ্যাটচ্যাটে জিনিস না লাগানোই ভালো। তাতে ঠোঁটে বেশি রং লেগে যায়, যা মুখের মধ্যেও ঢুকে যেতে পারে।

হোলির রং থেকে কীভাবে আপনার নখকে রক্ষা করবেন

দু’হাতে রং লেগে নখের ভোল পুরো বদলে যায়। সহজে নখ থেকে দাগ যেতে চায় না। তখন নখগুলো দেখতে খুব খারাপ লাগে। তাহলে হোলির রং থেকে কীভাবে বাঁচবেন, জানুন –

  • প্রথমে অলিভ অয়েলে নখ ডুবিয়ে রাখুন কিছুক্ষণ।
  • নখের উপর গাঢ় রঙের নেইলপলিশ মোটা করে লাগিয়ে নিন।
  • নখ ও তার চারপাশে পেট্রোলিয়াম জেলি লাগিয়ে নিতে পারেন।

চোখের পাতায় অলিভ অয়েল মাখুন

এক্ষেত্রে চোখের পাতারও যে যত্ন প্রয়োজন সেটা কী জানেন? কড়া রং আপনার আইল্যাশ অর্থাৎ চোখের পাতারও ক্ষতি করতে পারে। তাই আগে থেকে সাবধান থাকুন। হোলি খেলতে যাওয়ার আগে আঙুলের ডগায় সামান্য অলিভ অয়েল নিয়ে চোখের পাতার উপর ঘষে নিন। এটি প্রাকৃতিক কন্ডিশনারের মতে কাজ করবে, ক্ষতি থেকেও রক্ষা পাবেন।

মনে রাখার মতো জরুরি কিছু টিপস

দোল খেলার পর রং তোলা নিয়ে তাড়াহুড়ো পড়ে যায়। তাড়াহুড়ো না করে ধীরে ধীরে রং তুলুন ।

  • রং পরিষ্কার করতে সবসময় ঠান্ডা জল ব্যবহার করুন। গরম জলের ব্যবহার এড়িয়ে চলুন। কারণ গরম জল দিয়ে রং পরিষ্কার করা আরও মুশকিল হয়ে ওঠে।
  • রং তোলার জন্য বার বার মুখ ধোবেন না, কারণ এতে ত্বক রুক্ষ হয়ে যেতে পারে।
  • নারকেল তেলে সামান্য তুলো ভিজিয়ে নিন এবং ত্বকের উপর থেকে হালকা হাতে রং মুখে ফেলুন।
  • রং তুলতে আমচুর পাউডারও ভালো কাজ দেয়। এর জন্য সামান্য আমচুর পাউডার আগে জলে ভিজিয়ে রাখুন। তারপর ত্বকের উপর লাগিয়ে নিন।
  • হোলি খেলার পর পরই চুল ও ত্বকের কোনও রকমের ট্রিটমেন্ট যেমন ফেসিয়াল, ব্লিচ, হেয়ার কালার ইত্যাদি এড়িয়ে চলুন। ত্বক ও চুলে কোনও রকম কেমিক্যাল ব্যবহারের জন্য অন্তত এক থেকে দুই সপ্তাহ অপেক্ষা করুন।
  • হোলির পর চুল পড়ার সমস্যা দেখা দিলে দইয়ের মধ্যে মেথি ভিজিয়ে রেখে সেটিকে হেয়ার প্যাকের মতো ব্যবহার করতে পারেন। কিছুক্ষণ প্যাকটি লাগিয়ে রাখার পর শ্যাম্পু করে চুল ধুয়ে নিন।
  • পুরনো রং বা আবির রং খেলার সময় ব্যবহার করবেন না। কারণ এটি ত্বক ও চুলের ক্ষতি করতে পারে। যে কোনও পুরনো রং চুলের গোড়াকে নষ্ট করে দিতে পারে। ফলত চুল পড়ার সমস্যা হাজির হতে পারে।

রঙের উৎসব যখন রং খেলুন, তবে সাবধানতা অবলম্বন করতে ভুলবেন না। রং লেগে যাতে কোনও ক্ষতি না হয় তাই উপরে দেওয়া সতর্কতা মেনে চলুন। যাদের ত্বক খুব সেনসিটিভ বা অ্যালার্জি প্রবণ তাদের উচিত রং খেলা থেকে দূরে থাকা। বন্ধু-বান্ধব, আত্মীয়দের সঙ্গে জমিয়ে মজা, হইহুল্লোড করুন। সাবধানে থাকুন, সুস্থ থাকুন। সকলকে দোল উৎসবের অনেক অনেক শুভেচ্ছা।

প্রায়শই জিজ্ঞাসিত প্রশ্নাবলী

হোলিতে রং খেলার আগে মুখে কী লাগানো উচিত?

হোলি খেলার আগে মুখে সবচেয়ে ভালো সানস্ক্রিন লাগান। আপনার ত্বকের উপযোগী কোনও সানস্ক্রিন লাগাতে পারেন। চাইলে ত্বকের উপর পেট্রোলিয়াম জেলি লাগাতে পারেন।

মুখের উপর থেকে পারমানেন্ট রং কীভাবে তুলতে পারব?

পারমানেন্ট রং খুব সহজে উঠতে চায় না। এই পদ্ধতি ব্যবহার করতে পারেন না-

দুই চামচ মুলতানি মাটি, সামান্য গ্লিসারিন এবং জল একসঙ্গে মিশিয়ে ঘন পেস্ট তৈরি করে নিন। মিশ্রণটি ত্বকের উপর ১৫ মিনিট লাগিয়ে রাখুন। তারপর জল দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলুন। এছাড়া মুলতানি মাটির সঙ্গে কমলা লেবুর রস মিশিয়েও ত্বকের উপর লাগাতে পারেন। প্যাকটি কিছুক্ষণ লাগিয়ে রাখার পর জল দিয়ে ধুয়ে মুখ পরিষ্কার করে নিন।

হোলির রং থেকে নিজেকে কীভাবে বাঁচাবেন?

হোলির রং থেকে নিজেকে বাঁচাতে আগে সাবধান থাকুন। উপরের নিবন্ধে রঙে থাকা কেমিক্যালের হাত থেকে নিজেকে কীভাবে রক্ষা করবেন সেবিষয়ে বেশকিছু টিপস দেওয়া হয়েছে। রং খেলার পর টিপসগুলি ফলো করুন। ব্যাস তাহলেই আপনার ত্বকের জেল্লা, চুলের চাকচিক্য বজায় থাকবে।

Was this article helpful?
The following two tabs change content below.
scorecardresearch