মাখনার উপকারিতা, ব্যবহার এবং পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া – All About Fox Nuts (Makhana) in Bengali

by

অফিসের ফাঁকে কিংবা সন্ধেবেলার হালকা খিদে মেটাতে মাখনা আদর্শ। বাচ্চার মন ভোলাতেও চটপট স্ন্যাক্স বানিয়ে ফেলতে পারেন মাখনা দিয়ে। এটি যেমন সুস্বাদু তেমনই স্বাস্থ্যকর। স্বাদ তো আছেই এর পাশাপাশি আয়ুর্বেদিক গুণে জন্য মাখনা ভারত সহ বিশ্বের বিভিন্ন জায়গায় এর জনপ্রিয়তা রয়েছে। বিশেষ করে যারা স্বাস্থ্য সতেচন, তাদের ডায়েটে জায়গা করে নিয়েছে। এর চাহিদাও যেমন রয়েছে, দামও প্রচুর। এটি পদ্মবীজ বা ফক্স নাট নামেও পরিচিত। আমাদের এই প্রতিবেদনে মাখনার উপকারিতা এবং ব্যবহার সম্পর্কে আলোচনা করা হল। সেইসঙ্গে মাখনা খেলে কী হয় সেই সম্পর্কে জেনে নিন।

মাখনা কী?

মাখনা হল পদ্মফুলের বীজ। এটি যেমন সুস্বাদু, তেমনই পুষ্টিকর উপাদানে ভরপুর। মাখনা নানা নামে পরিচিত যেমন, ফক্স নাট, ফুল মাখনা, লোটাস বীজ, গর্জন নাট (১),(২)। এই বীজ ভাজার পর বিভিন্ন ধরনের খাবার তৈরিতে ব্যবহার করা হয়। একাধিক পুষ্টিমান সমৃদ্ধ মাখনা স্বাস্থ্যের জন্য উপকারী। স্বাস্থ্যের জন্য মাখনার উপকারিতা নীচে বিস্তারিতভাবে আলোচনা করা হল।

মাখনায় কী ওষধি গুণ রয়েছে?

মাখনার অনেক ওষধি গুণ রয়েছে, যা স্বাস্থ্যের জন্য উপকারী। এনসিবিআই (ন্যাশনাল সেন্টার ফর বায়োটেকনোলজি ইনফরমেশন) ওয়েবসাইটে প্রকাশিত রিপোর্ট অনুসারে, মাখনায় অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট, অ্যান্টি-ইনফ্লেমেটরি এবং অ্যান্টি টিফমার উপাদান রয়েছে। এটি জ্বর, পাচনতন্ত্রের উন্নতি এবং ডায়রিয়ার ওষুধ হিসেবে ব্যবহার করা যেতে পারে। এছাড়াও এটি বিশেষ অ্যালকলয়েড উপাদান সমৃদ্ধ। ইত্যাদি বৈশিষ্ট্য এবং প্রভাব মাখনাকে স্বাস্থ্যের জন্য উপকারী করে তুলেছে (৩)

মাখনা খাওয়ার উপকারিতা

নীচে মাখনার উপকারিতা সম্পর্কে আলোচনা করা হল। জেনে নিন নিয়মিত মাখনা খাওয়ার কী কী স্বাস্থ্যগুণ রয়েছে –

১. ওজন কমায়

শরীরের অতিরিক্ত ওজন কমাতে এটি দারুণ কার্যকরী। পরীক্ষায় দেখা গেছে, পদ্মবীজের ইথানল নিষ্কাশন শরীরের অতিরিক্ত ফ্যাট ঝড়াতে সাহায্য করে (৪)

২. ব্লাড প্রেসার কমায়

মাখনার নিয়মিত ব্যবহার এই সমস্যা থেকে মুক্তি দিতে পারে। এর মধ্যে উপস্থিত উপাদানগুলি উচ্চ রক্তচাপ কমায়। তাই হাই ব্লাড প্রেসারের সমস্যা দূর করতে ডায়েটে রাখুন মাখনা (৪)

৩. ডায়াবেটিস

ডায়াবেটিস এখন খুব সাধারণ একটি সমস্যা। নিয়মিত মাখনা খেলে ডায়াবেটিস নিয়ন্ত্রণে রাখতে পারবেন। মাখনার মধ্যে রয়েছে রেসিস্টেন্ট স্টার্চ যা ব্লাড সুগার নিয়্ন্ত্রণে রাখতে সাহায্য করে। তাছাড়া এটি ইনসুলিন নিয়ন্ত্রণ করতে সাহায্য করে (৫)

৪. হার্টের সুস্বাস্থ্য

মাখনা উচ্চ রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণে যেমন সাহায্য করে তেমনই এটি মধুমেয় এবং অতিরিক্ত ওজন কমাতে সাহায্য করে (৩),(৪),(৫)। উচ্চ রক্তচাপ, মধুমেয় এবং অতিরিক্ত ওজনের কারণে হার্টের সমস্যা দেখা দিতে পারে (৬)। মাখনা সেই সমস্যা দূর করতে সাহায্য করে।

৫. প্রোটিনের উৎস

প্রোটিনের অন্যতম উৎকৃষ্ট উৎস মাখনা। ১০০ গ্রাম মাখনায় প্রায় ১০.৭১ গ্রাম প্রোটিন রয়েছে (৭)। যাদের প্রোটিন সমৃদ্ধ খাবার খাওয়া প্রয়োজন তারা খাদ্যতালিকায় রাখুন মাখনা।

৬. গর্ভাবস্থায় এর উপকারিতা

গর্ভবতী মহিলাদের মাখনা খাওয়ার পরামর্শ দেন অনেকে। গর্ভবস্থায় মহিলাদের জন্য এটি উপকারী। গর্ভবস্থা চলাকালীন এবং প্রসবের পর শারীরিক দুর্বলতী কাটাতে সাহায্য করে। এছাড়াও এর মধ্যে বেশকিছু পুষ্টিগুণ রয়েছে যেমন, আয়রন, প্রোটিন, ম্যাগনেশিয়াম অবং পটাশিয়াম যা গর্ভবতী মহিলা এবং গর্ভস্থ সন্তানের জন্য উপকারী (৮)

৭. অনিদ্রা কাটায়

রাতে ঠিকমতো ঘুম হয় না? অনিদ্রার সমস্যায় ভুগছেন? তাহলে আপনার ডায়েটে রাখুন মাখনা। কারণ অনিদ্রা দূর করতে এর জুরি মেলা ভার (১)

৮. মাড়ির সমস্যা

এর মধ্যে রয়েছে অ্যান্টি ইনফ্ল্যামেটরি এবং অ্যান্টিমাইক্রোবিয়াল উপাদান, যা মাড়ির সমস্যা দূর করে। মাড়িতে ফোলাভাব, রক্তপাত ইত্যাদি সমস্যা কম করে (৯)

৯. কিডনির সুস্বাস্থ্য

কিডনির সুস্বাস্থ্য বজায় রাখতে মাখনা দারুণ কাজ করে। পরীক্ষায় প্রমাণিত, মাখনা অন্যান্য সমস্যার পাশাপাশি কিডনির সমস্যা কম করতে সাহায্য করে (১০)

১০. বলিরেখা এবং অ্যান্টি এজিং

কেবলমাত্র শারীরিক সুস্বাস্থ্য নয়, ত্বকের সৌন্দর্য ধরে রাখতে কার্যকরী ভূমিকা পালন করে মাখনা। এর মধ্যে উপস্থিত অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট বলিরেখা দূর করে এবং ত্বকে বয়সের ছাপ ফেলতে দেয় না (১১)

মাখনার পুষ্টিগত মান

নিয়মিত মাখনা খেলে কী কী উপকার পাবেন সেটা তো জানলেন, এবার জেনে নিন এর পুষ্টিগত মান (৭)

পুষ্টিগত মানমাত্রা প্রতি ১০০ গ্রাম
 ক্যালোরি৩৯৩ kcal
প্রোটিন১০.৭১ গ্রাম
ফ্যাট১০.৭১ গ্রাম
কার্বোহাইড্রেট৭১.৪৩ গ্রাম
ফাইবার৩.৬ গ্রাম
সুগার৩.৫৭ গ্রাম
ক্যালসিয়াম১৮ মিলিগ্রাম
পটাসিয়াম৫৭ মিলিগ্রাম
সোডিয়াম৭৫০ মিলিগ্রাম
ফ্যাটি অ্যাসিড মোট ল্যাচুরেটেড১.৭৯ গ্রাম

মাখনার ব্যবহার

মাখনা বিভিন্নভাবে ব্যবহার করতে পারেন। নীচে এর কয়েকটি ব্যবহার পদ্ধতি দেওয়া হল।

  • মাখনা শুকনো তাওয়ায় ভেজে নিয়ে স্ন্যাক্স হিসেবে খেতে পারেন।
  • অনেকে মাখনার পায়েস তৈরি করে খান। এটি খেতেও সুস্বাদু আবার স্বাস্থ্যকর।
  • অনেকে রান্না করেও খান। পনির ও মটরের তরকারি রান্নাতে যোগ করেন।

মাখনা কখন খাবেন – এটি সকালের জল খাবারে অথবা বিকেলের হালকা স্ন্যাক্স হিসেবে খেতে পারেন।

মাত্রা – সারাদিনে ২০ থেকে ৩০ গ্রাম মাখনা যে কোনও পদ্ধতিতে আপনি খেতে পারেন।

মাখনা কীভাবে বাছবেন এবং দীর্ঘদিন সংরক্ষণ করবেন

মাখনা কীভাবে বাছবেন  –

  • মাখনা কেনার সময় অবশ্যই ডেট চেক করে নিন। দেখে নিন যাতে এটি খুব পুরোনো না হয়। কারণ পুরোনো মাখনার মধ্যে পোকা বাসা বাঁধতে পারে।
  • পচা কিনা দেখে নিন। সেইসঙ্গে মাখনা নরম হয়ে গেছে কিনা দেখুন।

দীর্ঘদিন সংরক্ষণ করার উপায়

প্রথমত মাখনা কোনও এয়ারটাইট কনটেনর বা কৌটোর মধ্যে ভরে রাখুন যাতে এটি বাতাসের সংস্পর্শে না আসে।

  • শুকনো তাওয়ায় সামান্য নুন দিয়ে ভেজে কৌটোয় ভরে অনেকদিন রেখে দিতে পারেন। তবে খেয়াল রাখবেন যাতে এর মধ্যে সূর্যরশ্মি এবং বাতাস না পৌঁছায়।
  • মাখনা কখনও ফ্রিজে রাখবেন না। কারণ এটি নরম হয়ে যেতে পারে এবং খুব তাড়াতাড়ি নষ্ট হয়ে যেতে পারে। 

মাখনার পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া

মাখনার পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া সম্পর্কে তেমন কোনও বৈজ্ঞানিক প্রমাণ পাওয়া যায়নি। মাখনা শরীরের জন্য উপকারী কিন্তু অতিরিক্ত পরিমাণে এর ব্যবহারের কারণে অনেকের মধ্যে এই সমস্যা গুলি দেখা দিয়েছে –

মাখনার মধ্যে ফাইবার রয়েছে। তাই খুব বেশি মাখনা খেলে ফাইবারের অতিরিক্ত মাত্রা গ্যাস, পেট ও হজমের সমস্যা ডেকে আনে (১২)

মাখনা খেলে অনেকের অ্যালার্জির সমস্যা দেখা দেয়। সেক্ষেত্রে দেরি না করে ডাক্তারের পরামর্শ নেওয়া ভালো (৭),(১৩)

মাখনার সঙ্গে অনেকে পরিচিত অনেকে আবার নয়। অনেকে হয়ত কোনওদিন এটি খান করেননি। আমাদের এই প্রতিবেদনের মাধ্যমে মাখনার উপকারিতা এবং এটি কীভাবে ব্যবহার করবেন সেই বিষয়ে বিস্তারিতভাবে জানতে পারলেন। সেইসঙ্গে এর কোনও প্রতিক্রিয়া রয়েছে কিনা সেটাও জানা হয়ে গেল। যে কোনও নতুন জিনিস খাদ্য তালিকায় যোগ করার আগে এর ভালোমন্দ দিকগুলো ভালো করে যাচাই করে নেওয়া ভালো। বিশেষ করে তা যখন ছোট্ট বাচ্চা অথবা গর্ভবতী মহিলা হন। আশা করা যায়, উপরিউক্ত তথ্য আপনার জন্য সহায়ক হবে।

প্রায়শই জিজ্ঞাস্য প্রশ্নাবলী

মাখনার প্রকৃতি কেমন ঠান্ডা না গরম?

মাখনা গরম প্রকৃতির।

উপোসের সময় কী মাখনা খাওয়া যেতে পারে?

হ্যাঁ, দেশের বিভিন্ন প্রান্তে উপোসের সময় মাখনা খাওয়া হয়। মাখনা দিয়ে তৈরি খাবার খান অনেকে।

মাখনা এবং পদ্মবীজ কী এক জিনিস?

হ্যাঁ, পদ্ম ফুলের বীজ এবং মাখনা একই জিনিস।

13 References :

Stylecraze has strict sourcing guidelines and relies on peer-reviewed studies, academic research institutions, and medical associations. We avoid using tertiary references. You can learn more about how we ensure our content is accurate and current by reading our editorial policy.

Was this article helpful?
scorecardresearch