টি-ট্রি অয়েলের উপকারিতা ও অপকারিতা – Tea Tree Oil Benefits and Side Effects

Written by

চুল বা ত্বকের যত্ন নেওয়ার জন্য আমরা ভিন্ন ধরণের প্রসাধনী দ্রব্য বা কসমেটিকস ব্যবহার করে থাকি। প্রত্যেকেই আমরা সুন্দর ত্বক ও উজ্জ্বল চুল পেতে আগ্রহী থাকি, কিন্তু তার জন্য প্রয়োজন নিয়মিত সঠিক পরিচর্যা। আজকাল বাজারে টি-ট্রি অয়েলের প্রচুর চাহিদা। চুল হোক বা ত্বক দুক্ষেত্রেই এই এসেনশিয়াল অয়েল খুবই উপযোগী।

কি এই টি-ট্রি অয়েল ?

এই এসেনশিয়াল অয়েল অ্যান্টি-ব্যাক্টেরিয়াল , অ্যান্টি-ফাঙ্গাল ও ন্যাচারাল অ্যান্টি-সেপটিক হিসেবে পরিচিত । চুল ও ত্বককে স্বাস্থ্যকর করতে এই অয়েলটি খুবই উপকারী।

টি-ট্রি অয়েলের উপকারিতা কি কি ?

১. মূত্রাশয়ের সংক্রমণ কমায়

অ্যান্টিবায়োটিক রেসিস্ট্যান্ট ব্যাক্টেরিয়ার বিরুদ্ধে টি-ট্রি অয়েল খুবই কার্যকরী। এই টি-ট্রি অয়েলের ভাপ নিলে মূত্রাশয়ের সংক্রমণ কমায়। এছাড়া এই অয়েল স্নান করার সময় দশ ফোঁটা জলে দিয়ে মূত্রনালির খোলা অংশে দিলে মূত্রাশয় ও মূত্রনালির সংক্রমণ  কমতে পারে বলে জানা যায় (1) । মেনোপোজের আগে মহিলাদের যে মূত্রনালির সংক্রমণ ঘটে থাকে, সেটির থেকেও মুক্তি দিতে পারে এই তেল (2)

২. চোখে আঞ্জনি কমায়

টি-ট্রি অয়েলে অ্যান্টি-ব্যাক্টেরিয়াল উপাদান থাকে বলে এটি চোখের পাতায় হওয়া আঞ্জনি কমাতে সাহায্য করে (3)। দু চামচ টি-ট্রি অয়েল নিয়ে তার সাথে দু টেবিল চামচ জল মিশিয়ে ফ্রিজে রেখে দিন। কিছুক্ষন পর সেটি জাঁকিয়ে নিয়ে দিনে তিনবার ব্যবহার  করুন।

৩. দাঁতকে সুরক্ষা প্রদান করে

যদিও এক্ষেত্রে সঠিক তথ্য পাওয়া যায়নি, গবেষণা চলছে। তাতেও জানা যায় দাঁতের মাড়িতে হওয়া ব্যথা থেকে মুক্তি দিতে পারে এই  টি-ট্রি অয়েল (4) । মুখ দুর্গন্ধ হতে বাধা দেয় এই তেল।

৪.নাভির ইনফেকশন সারাতে

আপনি যদি নাভি নিয়মিত ঠিক ভাবে পরিষ্কার না করেন, তবে ইনফেকশন হওয়ার সম্ভাবনা থেকে যায়। ছোট ছোট ফোঁড়া হয় এবং রস গড়ায়। এর থেকে রক্ষা পেতে হলে একটু তুলো নিয়ে নাভিতে নিয়িমিত টি-ট্রি অয়েল লাগান।

৫. পায়ের ফোসকা সারাতে

টি-ট্রি অয়েলে অ্যান্টি-ব্যাক্টেরিয়াল পর্দাথ উপস্থিত থাকে বলে পায়ের ফোসকা পড়লে তা খুব জলদি সারাতে পারে (5) । তিন ভাগ জলের সাথে এক ভাগ টি-ট্রি অয়েল মিশিয়ে একটু তুলো নিয়ে সেটি ফোসকা পড়েছে যেখানে বুলিয়ে নেবেন। এইভাবে দশ মিনিট রেখে দিয়ে ঠান্ডা জলে ধুয়ে ফেলুন। দিনে দু থেকে তিনবার এই প্রক্রিয়াটি করুন।

৬. সাইনাসের ব্যথা সারাতে

সাইনাসের ব্যথা শুরু হলে এটি মালিশ করলে আপনি আরাম পেতে পারেন।

৭. দাঁত তোলার পর ব্যথা দূর করতে

দাঁত তোলার কদিন পর অনেকে ওই জায়গায় ব্যথা অনুভব করে থাকেন। সেই ব্যথা নিরাময় করতে টি-ট্রি অয়েল ব্যবহার করতে পারেন (6)। এক থেকে দু ফোঁটা এই অয়েল তুলোয় করে নিয়ে ব্যথার অংশে দিয়ে রাখুন কমপক্ষে পাঁচ মিনিটের জন্য। দিনে দু থেকে তিনবার এই প্রক্রিয়াটি করুন।

৮. গায়ের দুর্গন্ধ দূর করতে

টি-ট্রি অয়েলে অ্যান্টি-ব্যাক্টেরিয়াল , অ্যান্টি-ফাঙ্গাল উপাদান থাকার জন্য গায়ের দুর্গন্ধের সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে এটি উপযোগী। প্রত্যেকদিন স্নান করার সময় পাঁচ থেকে ছয় ফোঁটা জলে দিয়ে দিন, দেখবেন এই সমস্যার থেকে মুক্তি পাবেন।

৯. দাদের থেকে মুক্তি পেতে

দাদ হল একটি চর্মরোগ, যা ফাংগাল ইনফেকশন হিসেবে পরিচিত। টি-ট্রি অয়েলে অ্যান্টি-ফাঙ্গাল উপাদান থাকে বলে এটি এই চর্মরোগের থেকে মুক্তি দিতে পারে বলে জানা যায়।

১০. নিউমোনিয়া সারাতে

একটি গবেষণা থেকে জানা যায়, টি-ট্রি অয়েল ভালো করে শুকলে নাকি নিউমোনিয়ার প্রভাব কমতে পারে (7)

১১. আঁচিল বা জরুল দূর করতে

টি-ট্রি অয়েলে অ্যান্টি-ভাইরাল উপাদান থাকে, তাই এটি আঁচিলের সমস্যা দূর করতে সাহায্য করে।  একটি ছোটো ব্যাণ্ডেজ নিয়ে তাতে টি-ট্রি অয়েল লাগিয়ে আঁচিলের অংশে। ব্যান্ডেজের ওপর দিয়েও একটু  টি-ট্রি অয়েল লাগিয়ে নিন।  রাত্রিবেলা কমপক্ষে আট ঘন্টা লাগিয়ে রাখুন। সকালে উঠে খুলে ফেলুন ব্যান্ডেজটি এবং ঠান্ডা জলে মুখটি ধুয়ে ফেলুন। অন্তত এক মাস এই পদ্ধতি নিয়মিত পালন করুন।

১২. নখে ফাংগাল ইনফেকশন নিরাময় করতে

যদি দেখেন আপনার নখ হলুদ হয়ে এসেছে, তাহলে বুঝবেন আপনার নখে ফাংগাল ইনফেকশন হয়েছে। এই সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে তুলোতে করে একটু টি-ট্রি অয়েল নিয়ে নখে লাগান দিনে দুবার থেকে তিনবার। তবে তার আগে অবশ্যই ডাক্তারের সঙ্গে পরামর্শ করে নেবেন।

১৩. অ্যাকনের সমস্যা থেকে মুক্তি দিতে

তৈলাক্ত ত্বক যাদের থাকে তাদের অ্যাকনের সমস্যা মাঝে মাঝেই হয়ে থাকে। তাই রাতে ঘুমোতে যাওয়ার আগে ফেস ওয়াশ দিয়ে মুখ ধুয়ে টোনার লাগিয়ে নিয়মিত টি-ট্রি এসেনশিয়াল অয়েল মাখলে এই সমস্যার থেকে মুক্তি পাওয়া যায়।

১৪. এক্সজিমা সারাতে

এক্সজিমা হল একটি চর্মরোগ, যা ফাংগাল ইনফেকশন হিসেবে পরিচিত। টি-ট্রি অয়েলে অ্যান্টি-ফাঙ্গাল উপাদান থাকে বলে এটি এই চর্মরোগের থেকে মুক্তি দিতে পারে বলে জানা যায়।

১৫. খুশকির সমস্যা দূর করতে

শ্যাম্পু করার আগে নারকেল তেলে পরিমানমতো টি-ট্রি অয়েল এসেনশিয়াল অয়েল মিশিয়ে লাগান। পারলে সারারাত রেখে দিন তারপরে পরদিন ভালো করে শ্যাম্পু করে নিন। ড্রাই স্ক্যাল্প দূর করতে এই উপযোগী।

কিভাবে টি-ট্রি অয়েল ব্যবহার করবেন ?

উপরে নানা ধরণের সমস্যার থেকে মুক্তি পাওয়ার জন্য কিভাবে টি-ট্রি অয়েল ব্যবহার করতে হয়, উল্লেখ করা আছে। এছাড়াও আপনি নিয়মিত ত্বকের যত্ন নেওয়ার জন্য রাতে মুখ পরিষ্কার করে লাগান। কখনোই বেশি পরিমানে ব্যবহার করবেন না।

অবশ্যই যে কোনো ক্ষেত্রে এটি ব্যবহার করার আগে ডাক্তারের পরামর্শ নিয়ে নেবেন।

টি-ট্রি অয়েলের অন্যান্য উপকারিতা

  • হ্যান্ড স্যানিটাইজার- টি-ট্রি অয়েলে অ্যান্টি-ব্যাক্টেরিয়াল ও অ্যান্টি-ফাঙ্গাল উপাদান থাকার জন্য এটি হ্যান্ড স্যানিটাইজার হিসাবে ব্যবহৃত হয়। –
  • পোকা তাড়ানোর ঔষুধ – যে কোনো ধরণের পোকার থেকে বাঁচতে হলে দেহে টি-ট্রি অয়েল মাখুন।
  • ন্যাচারাল ডিওড্র্যান্ট – টি-ট্রি অয়েলের সুন্দর গন্ধ ন্যাচারাল ডিওড্র্যান্টের কাজ করে।

টি-ট্রি অয়েল ব্যবহার করার আগে যে যে বিষয়গুলি মনে রাখবেন

  • যেসব ছেলেদের এখনও পুরুষত্ব আসেনি তাদের ক্ষেত্রে এটি হরমোনের তারতম্য ঘটাতে পারে এই টি-ট্রি অয়েল (8)
  • গার্গল করার সময় অল্প করে এটি দেবেন জলে, অনেক সময় মুখের ভেতর স্পর্শকাতর জায়গাতে ক্ষতি করতে পারে।
  • ত্বকে লাগানোর পর যদি ত্বক বেশি শুকিয়ে যাচ্ছে দেখছেন, তাহলে ব্যবহার না করাই ভালো।

টি-ট্রি অয়েলের অপকারিতা

কোনো জিনিসই বেশি পরিমানে ব্যবহার করা ভালো নয়, টি-ট্রি অয়েলের ক্ষেত্রেও ঠিক সেরকমই ব্যপারটা । তবে এটি ব্যবহার করার আগে অবশ্যই ডাক্তারের সঙ্গে পরামর্শ করে নেবেন।

জনপ্রিয় দুটি টি-ট্রি অয়েলের ব্র্যান্ড

১. Modicare tea tree oil 

২. khadi tea tree oil

৩.The body shop tea tree oil 

৪. Rey Naturals Tea tree oil 

দেখতেই পেলেন, টি-ট্রি অয়েলের কত গুণ। তাহলে এবার থেকে অবশ্যই উপরে উল্লেখিত সমস্যাগুলি হলে এটি ব্যবহার করুন। তবে ডাক্তারের সাথে পরামর্শ করতে ভুলবেন না কিন্তু ।

প্রায়শই জিজ্ঞাসিত প্রশ্নাবলী:

  • বার্ধ্যকের ছাপ পড়া থেকে মুক্তি পেতে  টি-ট্রি অয়েল ব্যবহার করা যায় কি ?

উঃ  হ্যাঁ , অবশ্যই ব্যবহার করতে পারেন। একটু মধুর সাথে মিশিয়ে মুখে কমপক্ষে কুড়ি মিনিট রেখে দিন। নিয়মিত এই পদ্ধতি পালন করুন।

  • ত্বককে উজ্জ্বল করার জন্য  টি-ট্রি অয়েল ব্যবহার করা যায় কি ?

উঃ ত্বককে উজ্জ্বল করার ক্ষেত্রে টি-ট্রি অয়েল খুবই উপযোগী।

  • বাড়িতে কি টি-ট্রি অয়েল বানানো যায় ?

উঃ  হ্যাঁ , বাড়িতে বানানো যায়।

Sources

Articles on StyleCraze are backed by verified information from peer-reviewed and academic research papers, reputed organizations, research institutions, and medical associations to ensure accuracy and relevance. Check out our editorial policy for further details.
The following two tabs change content below.

    LATEST ARTICLES