ভিটামিন ডি-3 এর উপকারিতা, এর ঘাটতির কারণ এবং লক্ষণ | Vitamin D3 Benefits in Bengali

by

আজকাল মানুষ সুস্থ থাকার জন্য স্বাস্থ্যকর খাদ্যাভ্যাসের পরিবর্তে পেট এবং মন ভরায় এমন সব খাবার খান বেশী। ফলস্বরূপ, শরীরে অনেক রকমের পুষ্টির ঘাটতি দেখা যায় এবং বিভিন্ন রোগ শরীরে বাসা বাঁধে সহজেই। রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়িয়ে তোলে, সুস্থ্ থাকার জন্য অতি অবশ্যই প্রয়োজন এমন সব ভিটামিনের মধ্যে ভিটামিন ডি-3 হল অন্যতম পুষ্টি উপাদান।

স্টাইলক্রেসের এই নিবন্ধে, ভিটামিন ডি-3 আমাদের সুস্থ্ থাকার জন্য কতটা গুরুত্বপূর্ণ সেই বিষয়ে আলোচনা করব। এর সাথে, ভিটামিন ডি-3 এর ঘাটতির কারণ এবং ঘাটতির ফলে দেখা যায় এমনসব শারীরিক সমস্যা এবং রোগের লক্ষণগুলি সম্পর্কেও বলব। ভিটামিন ডি-3 এর উপকারিতা এবং খাদ্যাভ্যাসের মাধ্যমে কীভাবে ভিটামিন ডি-3 এর ঘাটতি পূরণ করবেন সেই বিষয়ে জানতে হলে এই নিবন্ধটি শেষ পর্যন্ত পড়ুন।

সবার আগে, আমরা ব্যাখ্যা করছি ভিটামিন ডি-3 এর অভাব বলতে কী বোঝায়।

ভিটামিন ডি 3 এর ঘাটতি বলতে কী বোঝায়?

ভিটামিন ডি-3 মূলত উদ্ভিজ্জ ভিটামিন এবং সূর্যালোক থেকে প্রাপ্ত একটি ভিটামিন যা কোলেক্যালসিফেরল (Cholecalciferol) নামেও পরিচিত।(1) দেহ পর্যাপ্ত পরিমাণে ভিটামিন ডি-3 শোষণ করতে না পারলে শরীরে এই ভিটামিনের অভাব দেখা যায়। শরীরে ভিটামিন ডি 3 এর ঘাটতির কারণে হাড় দুর্বল হয়ে যাওয়া এবং হৃদরোগের মতো অনেক রোগ দেখা দিতে পারে। কারণ, সামগ্রিক রক্ত চলাচলের মাধ্যমে দেহ ক্যালসিয়াম ও ফসফেটের মত গুরুত্বপূর্ণ পুষ্টি উপাদান শোষণ করে আর এই দুই উপাদানের বিপাকের জন্য প্রয়োজন ভিটামিন ডি-3। কোষ এবং হাড়ের স্বাভাবিক বৃদ্ধি এবং সামগ্রিক সুস্বাস্থ্য বজায় রাখার জন্য অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ এই ভিটামিন। যদি কোনোভাবে দেহে ভিটামিন ডি-3 এর হ্রাস পায় তবে শিশুদের মধ্যে রিকেট আর প্রাপ্তবয়স্কদের মধ্যে অস্টিওপোরোসিসের মত দীর্ঘস্থায়ী জটিল রোগ দেখা দিতে পারে। ভঙ্গুর হাড়, হাড়ের ফাটল, সংক্রমণের ঝুঁকি, দুর্বল রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা, মাত্রারিক্ত ক্লান্তি ও দুর্বলতা লক্ষ্য করা যায় ভিটামিন ডি-3 এর ঘাটতির ফলে।

এবারে জেনে নিন, ঠিক কী কী কারণে দেহে ভিটামিন ডি-3 এর অভাব দেখা দিতে পারে।

ভিটামিন ডি-3 এর অভাবের কারণ

বিভিন্ন কারণে শরীরে ভিটামিন ডি-3 এর ঘাটতি দেখা দিতে পারে, যেমন –(2)

  • আপনার রোজকার খাদ্যতালিকায় ভিটামিন-ডি সমৃদ্ধ খাবার অন্তর্ভুক্ত না থাকলে।
  • কিডনি এবং লিভার সক্রিয়ভাবে দেহে ভিটামিন ডি রূপান্তর করতে না পারলে।
  • খাবার থেকে ভিটামিন ডি গ্রহণের পরেও শরীর যদি তা সঠিক মাত্রায় শোষণ করতে না পারে।
  • সূর্যের আলো ভিটামিন ডি-3 একটি গুরুত্বপূর্ণ উৎস। তাই আমরা যদি রোদের মধ্যে বা বলা ভালো সূর্যের আলোর মধ্যে একটুও চলাফেরা না করি তবে এরকম পরিস্থিতি দেখা যেতে পারে।
  • রোগ নিরাময়ে এবং নিয়ন্ত্রণে আমরা কিছু ওষুধ খাই। সেইসব ওষুধের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়ার ফলেও ভিটামিন ডি-3 এর অভাব দেখা দিতে পারে।

এবার জেনে নিন, ভিটামিন ডি-3 এর ঘাটতির ফলে কী কী শারীরিক সমস্যার সৃষ্টি হতে পারে।

ভিটামিন ডি-3 এর ঘাটতির ফলে হওয়া শারীরিক লক্ষণ

ভিটামিন ডি-3 এর ঘাটতির ফলে বিভিন্ন রকমের শারীরিক সমস্যা দেখা যায়, যেমন –

  • পেশীর টান (Muscle twitching)
  • পেশীর দুর্বলতা এবং ব্যথা
  • সিঁড়ি দিয়ে ওঠানামা করার সময়, অনেক্ষণ বসে থাকার পর ওঠার সময় ব্যথা অনুভব করা
  • আর্থ্রালিজিয়াস (Arthralgias)
  • দুর্বল এবং ভঙ্গুর হাড়
  • হঠাৎ হাড়ে ফাটল ধরা বা ব্যথা অনুভব করা

ভিটামিন ডি-3 এর ঘাটতির ফলে হওয়া শারীরিক সমস্যা এবং রোগের লক্ষণগুলির পরে, এবার এই ভিটামিনের উপকারিতা সম্পর্কে জেনে নিন।

ভিটামিন ডি-3 এর উপকারিতা:

তবে, চিন্তার কোনো কারণ নেই। আমাদের দেহ সঠিক মাত্রায় ভিটামিন ডি-3 শোষণ করতে না পারলে, ঘাত্তি পূরণের জন্য রয়েছে এই ভিটামিনের পরিপূরক ওষুধ। শুধুমাত্র ভিটামিন ডি-3 সমৃদ্ধ ওষুধ সেবন করলেই যে ঘাটতিজনিত বিভিন্ন রকমের সমস্যার হাত থেকে মুক্তি পাওয়া যাবে তা কিন্তু নয়, সাথে সুষম খাদ্য গ্রহণ এবং নিয়মিত শারীরিক অনুশীলন করাও গুরুত্বপূর্ণ সামগ্রিকভাবে সুস্থ থাকার জন্য। এবারে, আমরা ভিটামিন ডি-3 এর উপকারিতা নিয়ে আলোচনা করব।

  • হৃৎপিন্ড সুরক্ষিত রাখে

ভিটামিন ডি-3 এর অভাবজনিত রোগগুলির মধ্যে অন্যতম হল হার্ট সম্পর্কিত বিভিন্ন রকমের শারীরিক সমস্যা।(3) সতর্ক থেকে ভিটামিন ডি-3 এর ঘাটতি পূরণের মাধ্যমে হৃদরোগের ঝুঁকি এড়ানো যায়। গবেষণা অনুসারে, ভিটামিন ডি এর অভাব হার্টের সমস্যার ঝুঁকি বাড়ায়। এ জাতীয় পরিস্থিতিতে বলা যেতে পারে যে শরীর পর্যাপ্ত পরিমাণে ভিটামিন ডি শোষণ করতে পারলে হৃৎপিন্ড সুরক্ষিত থাকে, এবং এর কার্যকারীতাও সঠিকভাবে বজায় থাকে। এই কারণে, কেবলমাত্র দেহে ভিটামিন ডি-3 এর সঠিক পরিমাণ বজায় রাখার মাধ্যমে, এই ভিটামিনের অভাবজনিত কার্ডিওভাসকুলার রোগ থেকে রক্ষা পাওয়া যায়।(4)

  • রক্তচাপ নিয়ন্ত্রণ করতে সাহায্য করে

এনসিবিআইয়ের ওয়েবসাইটে প্রকাশিত একটি গবেষণায় বলা হয়েছে যে ভিটামিন ডি-3 এর অ্যান্টিহাইপ্রেসিভেন্সি অর্থাৎ রক্তচাপ কমিয়ে দেওয়ার প্রভাব রয়েছে। জানা গেছে যে এটি কেবল সিস্টোলিক রক্তচাপ(5) হ্রাস করতে পারে। অন্য একটি সমীক্ষা অনুসারে, এই ভিটামিন হাইপারটেনসিভ রোগীদের উপর হাইপোটেনসিভ প্রভাব দেখায়, তবে সাধারণ সুস্থ ব্যক্তির উপর এর কোনও প্রভাব নেই(6)।

দ্রষ্টব্য এটি কেবলমাত্র ভিটামিন ডি এর ঘাটতিজনিত কারণে হওয়া উচ্চ রক্তচাপের সমস্যায় ভোগা রোগীদের  সিস্টোলিক এবং ডায়াস্টলিক রক্তচাপকে হ্রাস করতে পারে। গবেষণা আরোও বলছে যে এই ভিটামিন ৫০ বছরের বেশি বয়সের ব্যক্তিদের ক্ষেত্রে এবং যারা স্থূলতায় ভুগছেন তাদের ক্ষেত্রেও সিস্টোলিক রক্তচাপ কমতে পারে যাইহোক, ভিটামিন ডি-3 এবং রক্তচাপ সম্পর্কে কিছু গবেষণা আরও বলেছে যে এই ভিটামিন সরাসরিভাবে রক্তচাপ কমাতে পারে না। তাই, বলা যায় এই বিষয়ে আরও গবেষণা করা দরকার।

  • অনাক্রম্যতা বৃদ্ধি করে

ভিটামিন ডি-3 এর সুবিধাগুলির মধ্যে অন্যত্ম হল এই ভিটামিন আমাদের শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাকে বাড়িয়ে তোলে। ভিটামিন-ডি ইমিউনোমোডুলেশন(7) এর জন্য পরিচিত। ইমিউনোমোডুলেশন মানে এটি শরীরের প্রয়োজন অনুযায়ী প্রতিরোধ ব্যবস্থা বাড়ায় এবং স্বয়ংক্রিয়ভাবে হ্রাস পায়। একই সাথে, ভিটামিন ডি শরীরের প্রতিরোধক কোষ যেমন টি কোষ এবং ম্যাক্রোফেজগুলির কার্যকারিতাও উন্নত করতে পারে। শুধু এটিই নয়, ভিটামিন ডি-3 এর একটি প্রদাহ বিরোধী প্রভাবও রয়েছে, যার কারণে এটি শরীরকে ব্যাকটেরিয়াল সংক্রমণের হাত থেকে রক্ষা করতে সহায়তা করে(8)।

  • ক্যান্সার প্রতিরোধ করতে সাহায্য করে

জাতীয় ক্যান্সার ইনস্টিটিউট অনুসারে, ভিটামিন ডি-3 (ক্যালসিট্রিওল) এর একটি অ্যান্টি-টিউমার ও অ্যান্টি-ক্যান্সার প্রভাব রয়েছে। এই প্রভাব টিউমার কোষকে বৃদ্ধি থেকে রোধ করে ক্যান্সারের ঝুঁকি কমায়।(9) এক সমীক্ষায় দেখা গেছে, এই ভিটামিন ক্যান্সারের অগ্রগতির প্রক্রিয়াটি কমিয়ে দিতে পারে বা ক্যান্সার প্রতিরোধ করতে পারে। মনে রাখবেন, ক্যান্সারের মতো গুরুতর অসুস্থতা এড়াতে ভিটামিন ডি-3 এর পাশাপাশি অন্যান্য সমস্ত পুষ্টি উপাদানগুলিকেও ডায়েটে অন্তর্ভুক্ত করতে হবে। 

  • ব্লাড সুগারের সমস্যা নিয়ন্ত্রণে সাহায্য করে

কিছু গবেষণা বিশ্বাস করে যে ভিটামিন ডি এর ঘাটতির কারণে শরীরে ইনসুলিনের মাত্রা স্বাভাবিকের চেয়ে বেড়ে যেতে পারে। এ কারণে ডায়াবেটিসের ঝুঁকি দেখা দিতে পারে। এই ক্ষেত্রে, ভিটামিন ডি ইনসুলিন হ্রাস করে টাইপ-2 ডায়াবেটিস প্রতিরোধ করতে পারে। এই গবেষণায় এটাও বলা হয়েছে যে এটি নিশ্চিত করার জন্য আরও গবেষণা করা প্রয়োজন।

অন্য একটি গবেষণায় দেখা গেছে যে টাইপ-2 ডায়াবেটিস রোগীদের ভিটামিন ডি পরিপূরক প্রদানের ফলে ইনসুলিনের কার্যকারীতার এবং ব্লাড সুগার সম্পর্কিত হিমোগ্লোবিন (HbA1c) – এর উন্নতি হতে পারে। এই ভিত্তিতে গবেষণা বলছে যে ভিটামিন ডি ডায়াবেটিস এবং ডায়াবেটিস সম্পর্কিত জটিলতাগুলির চিকিৎসা এবং প্রতিরোধে ভিটামিন ডিও গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা নিতে পারে।(10)

  • মানসিক সুস্বাস্থ্য বজায় রাখতে সাহায্য করে

একটি গবেষণা অনুসারে, ভিটামিন ডি-3 এর অভাবে খারাপ মেজাজ, হতাশা,উদ্বেগ এর মত বিভিন্ন মানসিক সমস্যা দেখা দিতে পারে। ভিটামিন ডি সমৃদ্ধ খাবার খেয়ে এবং প্রয়োজনে চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী ভিটামিন-ডি এর পরিপূরক ওষুধ খেয়ে সুস্থ শরীরের পাশাপাশি  মানসিক সুস্বাস্থ্য বজায় রাখতে পারেন আপনি।(11)

এবারে জেনে নিন, কীভাবে ভিটামিন ডি-3 এর ঘাটতি এড়াবেন।

ভিটামিন ডি-3 এর ঘাটতি এড়ানোর উপায়

এতক্ষণে আপনি নিশ্চয়ই বুঝতে পেরেছেন যে আমাদের জীবনে ভিটামিন ডি-3 এর গুরুত্ব কী।  ভিটামিন ডি-3 এর অভাব কীভাবে হয়, এর ঘাটতির ফলে কী কী শারীরিক সমস্যা দেখা দিতে পারে সেই ব্যপারে ইতিমধ্যে উপরে আলোচনা করেছি। এবারে, আপনার সুবিধার জন্য রইল কিছু টিপস যেগুলো অনুসরণ করে আপনি নিজেকে সুস্থ রাখতে পারেন।

  • ডায়েটে ভিটামিন ডি সমৃদ্ধ খাবার রাখুন।
  • পর্যায়ক্রমে পরীক্ষা করে নিশ্চিত হয়ে নিন ভিটামিন ডি-3 এর ঘাটতি আছে কী না।
  • প্রতিদিন রোদে কিছুক্ষণ বসে থাকুন।

সঠিক খাদ্যাভ্যাসের মাধ্যমে এবং চিকিৎসকের পরামর্শ অনুযায়ী ওষুধ বা খাদ্য পরিপূরক গ্রহণের মাধ্যমে ভিটামিন ডি-3 এর অভাব পূরণ করা যায়। রোগীর বয়স, শারীরিক অবস্থা, ওজন এবং উচ্চতা অনুযায়ী চিকিৎসকরা নির্ধারণ করেন, তিনি কীভাবে ভিটামিন ডি-3 এর ঘাটতি পূরণ করবেন। তার আদৌ ভিটামিন ডি-3 সমৃদ্ধ খাদ্য পরিপূরক বা ওষুধের প্রয়োজন আছে কি না। ভিটামিন ডি-3 সমৃদ্ধ ওষুধের ব্যবহার এবং প্রভাব ব্যক্তি বিশেষে পৃথক হতে পারে, তাই ভিটামিন ডি-3 সমৃদ্ধ ওষুধ খাবার আগে একজন চিকিৎসকের সাথে পরামর্শ করুন।

শরীরের জন্য সব ধরণের পুষ্টি প্রয়োজনীয়। ভিটামিন ডি 3 এর পাশাপাশি অন্যান্য পুষ্টির বিষয়টি উপেক্ষা করবেন না।  এখন নিবন্ধের শেষে ভিটামিন ডি-3 সম্পর্কিত কিছু প্রশ্নের উত্তর জেনে নিন।

সম্ভাব্য জিজ্ঞাস্য প্রশ্নাবলী

শরীরে ভিটামিন ডি-3 কমে গেলে কী হবে?

ভিটামিন ডি-3 এর ঘাটতিতে কার্ডিওভাসকুলার অর্থাৎ হৃৎপিন্ডের জটিলতা সম্পর্কিত বিভিন্ন রোগ, হাড় ও পেশীর দুর্বলতাজনিত কিছু শারীরিক সমস্যা  এবং অন্যান্য কিছু রোগ হতে পারে, যা আমরা উপরে নিবন্ধে উল্লেখ করেছি।

ভিটামিন ডি-3 সমৃদ্ধ খাবার কী কী?

ভিটামিন ডি-3 যুক্ত খাবারগুলির মধ্যে কড লিভার অয়েল, মাশরুম, হাঁসের ডিম বা মাংস, পনির ইত্যাদি অন্তর্ভুক্ত রয়েছে।

ভিটামিন ডি এবং ভিটামিন ডি-3 এর মধ্যে পার্থক্য কী?

ভিটামিন ডি মূলত দুটি প্রকারের। এর মধ্যে একটি হ’ল ভিটামিন ডি 2 এবং অন্যটি ভিটামিন ডি-3। অর্থাৎ ভিটামিন ডি-3 হল ভিটামিন ডি এর একটি প্রকার।

আমি কি প্রতিদিন ভিটামিন ডি-3 নিতে পারি?

হ্যাঁ, যদি শরীরে ভিটামিন ডি এর পরিমাণ কম হয় তবে ডাক্তারের পরামর্শে ভিটামিন ডি-3 সমৃদ্ধ ওষুধ  প্রতিদিন বা সপ্তাহে একবার খেতে পারেন।

ভিটামিন ডি-3 কাজ করতে কতক্ষণ সময় নেয়?

এটি ব্যক্তির শরীরে ভিটামিন ডি-3 এর ঘাটতির পরিমাণ এবং সামগ্রিক শারীরিক অবস্থার ওপর নির্ভর করে।

11 Sources

Was this article helpful?
scorecardresearch